ব্যাটিংয়ে নেমেছে বাংলাদেশ, সরাসরি দেখুন ম্যাচটি

জিম্বাবুয়ে দলে এক পরিবর্তন

একটি পরিবর্তন এনেছে জিম্বাবুয়ে। দলে জায়গা হারিয়েছেন ক্রেইগ আরভিন। একাদশে ফিরেছেন রিচমন্ড মুতুমবামি।




জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ব্রেন্ডন টেইলর, রিচমন্ড মুতুমবামি, শন উইলিয়ামস, টিনোটেন্ডা মাতুমবদজি, রায়ান বার্ল, রেজিস চাকাবভা, নেভিল মাদজিভা, কাইল জার্ভিস, আইন্সলে এনডিলোভু, টেন্ডাই চাতারা।




আমিনুল-শান্তর অভিষেক, ফিরলেন শফিউল
সৌম্য সরকার স্কোয়াডেই না থাকায় একটি পরিবর্তন আনতেই হতো। বাংলাদেশ এনেছে তিনটি পরিবর্তন। অভিষেক হচ্ছে টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত ও লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের। দলে ফিরেছেন পেসার শফিউল ইসলাম।




একাদশে জায়গা হারিয়েছেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান ও বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম।
বাংলাদেশ একাদশ: সাকিব আল হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটস দাস, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, সাইফ উদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।




টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ
রাউন্ড রবিন লিগের চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান মনে করেন, আগে ব্যাটিং পাওয়ায় ভালোই হয়েছে। রান তাড়ার চাপ না থাকায় দুর্ভাবনা ছাড়াই ব্যাটিং করতে পারবেন তারা।




বাংলাদেশের ফাইনালে ওঠার লড়াই
অসাধারণ এক ইনিংসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিয়েছিলেন আফিফ হোসেন। পরের ম্যাচে একটা সময় পর্যন্ত ভালো অবস্থানে থাকলেও আফগানিস্তানের বিপক্ষে পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। এবার আবারও প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে, জিতলেই সাকিব আল হাসানের দল পৌঁছে যাবে ফাইনালে।




চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায়।
র‍্যাঙ্কিং, শক্তি-সামর্থ্য আর ক্রিকেটীয় বাস্তবতায় এই ম্যাচে বাংলাদেশের জয় খুবই প্রত্যাশিত। তবে প্রত্যাশা মানেই যে নিশ্চয়তা নয়, সেটির খানিকটা প্রমাণ টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই দেখা গেছে। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা নিয়ে অধিনায়ক সাকিব ম্যাচের পর বলেছিলেন, ঘাটতি আছে দলের স্কিলে ও মানসিকতায়। টুর্নামেন্ট চলার পথে, এত দ্রুত সেই ঘাটতি কিভাবে পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব?




জিম্বাবুয়ের বাঁচা-মরার ম্যাচ
প্রথম দুই ম্যাচে হেরে ফাইনালে ওঠার আশা ফিকে হয়ে গেছে জিম্বাবুয়ের। তবে আগের দুই ম্যাচ থেকেই ঘুরে দাঁড়ানোর উপকরণ খুঁজে পাচ্ছে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার দল।




টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে যেমন প্রায় জিতেই যাচ্ছিল জিম্বাবুয়ে। শেষ পর্যন্ত তারা পেরে ওঠেনি আফিফ হোসেনের পাল্টা আক্রমণে। পরের ম্যাচে আফগানিস্তানকেও তারা চাপে রাখতে পেরেছিল একটা পর্যায় পর্যন্ত। চতুর্দশ ওভারে আফগানদের রান ছিল ৪ উইকেটে ৯০। সেখান থেকে নাজিবউল্লাহ জাদরান ও মোহাম্মদ নবির ব্যাটিং তান্ডবে ধরাছোঁয়ার প্রায় বাইরে চলে যায় আফগানরা।




শন উইলিয়ামস তাই মনে করেন ছোট ছোট কিছু ব্যাপার ঠিকঠাক করতে পারলেই ধরা দেবে জয়। টুর্নামেন্টে টিকে থাকবে জিম্বাবুয়ে।

ম্যাচটি সরাসরি দেখতে এখানে ভিজিট করুন https://www.rabbitholebd.com/

সময় ফুরিয়ে এলো কি হাফিজ-মালিকেই?

ক্যারিয়ার এগিয়ে নেয়ার পথে বয়সটা দুজনেরই বড় বাধা। তবু ফর্ম থাকলে বয়সের বাধা জয় করা খুব কঠিন কিছু নয়। কিন্তু সেই ফর্ম দেখানোর মঞ্চটাও আর পাচ্ছেন না পাকিস্তানের দুই অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজ এবং শোয়েব মালিক।এরই মধ্যে জীবনের ৩৮ বসন্ত কাটিয়েছেন হাফিজ, মালিকের বয়স ৩৭। স্বাভাবিকভাবেই নিয়মিত কথা ওঠে তাদের অবসরের ব্যাপারে। কিন্তু দুজনেরই ইচ্ছা আরও কিছুদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটটা খেলার। তবে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড হয়তো আর ভাবছে না তাদের নিয়ে।




আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ঘরের লঙ্কানদের বিরুদ্ধে যে সিরিজ খেলবে পাকিস্তান, তার জন্য ১৮ তারিখ থেকে লাহোরে জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে শুরু হবে ট্রেনিং ক্যাম্প। সেই ক্যাম্পের জন্য আজ (সোমবার) ২০ সদস্যের দল ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রধান নির্বাচক ও কোচ মিসবাহ উল হক।পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী এ প্রাথমিক দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ এবং সহ-অধিনায়ক হিসেবে রয়েছেন বাবর আজম। আগামী ১৮ থেকে ২৩ তারিখ পর্যন্ত ক্যাম্প চলবে লাহোরে। পরে ২৪ তারিখ তারা চলে যাবে করাচি। যেখানে ২৭ তারিখ মাঠে গড়াবে প্রথম ওয়ানডে।




তাই তো শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে ঘরের মাঠে সিরিজের জন্য ঘোষিত ২০ সদস্যের প্রাথমিক দলেও জায়গা পাননি দুই সাবেক অধিনায়ক হাফিজ ও মালিক। উল্টো তাদের দেয়া হয়েছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে অংশ নেয়ার অনাপত্তিপত্র।
পাকিস্তানের ২০ সদস্যের প্রাথমিক দল
সরফরাজ আহমেদ, বাবর আজম, আবিদ আলি, আহমেদ শেহজাদ, আসিফ আলি, ফাহিম আশরাফ, ফাখর জামান, হারিস সোহেল, হাসান আলি, ইফতিখার আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, ইমাম উল হক, মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ হাসনাইন, মোহাম্মদ নওয়াজ, মোহাম্মদ রিজওয়ান, শাদাব খান, উমর আকমল, উসমান শিনওয়ারি এবং ওয়াহাব রিয়াজ।




প্রধান কোচ ও নির্বাচকের দায়িত্ব নিয়ে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের মধ্যে আমূল পরিবর্তন আনার মিশনে নেমেছেন দেশটির সাবেক অধিনায়ক মিসবাহ উল হক। যার প্রথম ধাপে তিনি হাত দিয়েছেন খেলোয়াড়দের খাদ্যাভ্যাসে।স্কিলের আগে ফিটনেস- এই মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের খাদ্যতালিকায় পরিবর্তন এনেছেন মিসবাহ। সরাসরি বলে দিয়েছেন, চলতি কায়েদে আজমের ম্যাচে এবং জাতীয় একাডেমিতে থাকা খেলোয়াড়দের জন্য মুরগিজাতীয় যেকোনো খাবার পুরোপুরি নিষিদ্ধ। পাকিস্তানি দৈনিক জাং প্রকাশ করেছে এই খবর।




পত্রিকাটি আরও জানাচ্ছে, লাহোরে জাতীয় একাডেমির খাদ্য তালিকায় কম তৈলাক্ত খাবার অন্তর্ভুক্ত করেছেন মিসবাহ। এছাড়া খেলোয়াড়দের ডায়েটের জন্যও আলাদা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন তিনি।একই সঙ্গে কায়েদে আজম ট্রফিতে খেলোয়াড়দের জন্য মুরগিজাতীয় সব খাবারের সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এর বদলে মসুর ডাল, চাল, বারবিকিউ, পাস্তাজাতীয় খাবার দেয়া হচ্ছে খেলোয়াড়দের। এছাড়া প্রথমবারের মতো অনেক বেশি ফলমূল খেতে দেয়া হচ্ছে খেলোয়াড়দের।




শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের জন্য চলতি মাসের ১৮ তারিখ থেকে ট্রেনিং ক্যাম্প শুরু করবে পাকিস্তান। ক্রিকেট বোর্ডের সূত্রের বরাত দিয়ে দৈনিক জাং জানায়, দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদসহ ছয় ক্রিকেটারকে ক্যাম্পের বদলে নিজেদের ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে বলেছেন মিসবাহ। এছাড়া কায়েদে আজমের দলগুলোর কোচেদেরও ফিটনেস বিষয়ক নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।




খেলোয়াড়দের ফিটনেস ইস্যুতে জোর দেয়ার লক্ষ্যে প্রতিদিন লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ফিটনেস টেস্ট নিচ্ছেন নতুন কোচ মিসবাহ। এছাড়া ফিল্ডিং কোচ গ্র্যান্ট ব্র্যাডবার্নও এ কাজে সাহায্য করছেন প্রধান কোচকে।আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেদের আসন্ন মৌসুমের জন্য চলতি কায়েদে আজম ট্রফিতে বিশেষ নজর দিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। সিডনি থেকে লাহোর পৌঁছেই মাঠের সীমানায় দাঁড়িয়ে বোলারদের পরামর্শ দিতে ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে নতুন বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিসকে।

সোনারগাঁও থেকে আরেক ‘নয়ন বন্ডকে’ ধরল পুলিশ!

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী একাধিক মামলার আসামি নয়ন ওরফে নয়ন বন্ডকে (২২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে উপজেলার গোহাট্টা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।গ্রেফতার নয়ন বন্ড উপজেলার গোহাট্টা এলাকার জাকির হোসেনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সোনারগাঁ থানাসহ বিভিন্ন থানায় অস্ত্র ও ডাকাতির মোট ১২টি মামলা রয়েছে। তার একটি বিশাল কিশোর গ্যাং বাহিনী রয়েছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।




সোনারগাঁ থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ নয়ন বন্ডকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। সে একটি সংঘবদ্ধ দল তৈরি করে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ডাকাতি, ছিনতাই ও মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। সোনারগাঁ থানার ওসির নির্দেশে আজ সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।




পুলিশ জানায়, নয়ন বন্ড একটি কিশোর গ্যাংয়ের লিডার। তার অত্যাচারে সোনারগাঁয়ের কয়েকটি এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ। কেউ তার অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করলে বিভিন্নভাবে তাদের ক্ষতিসাধন করেন তিনি।
যেভাবে নয়ন থেকে নয়ন বন্ড

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নয়ন সোনারগাঁ উপজেলার বাসিন্দা হলেও তিনি ঢাকার ডেমরার সারুলিয়া এলাকায় অবস্থান করে তার কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের নিয়ে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেন। ডাকাতি থেকে শুরু করে এমন কোনো অপকর্ম নেই যা তিনি করেননি। বরগুনার নয়ন বন্ডের কর্মকাণ্ড দেখে তার কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা তাকে ‘নয়ন বন্ড’ উপাধি দেয়। এরপর থেকে তিনি নয়ন বন্ড হিসেবেই পরিচিতি পান।




নেত্রকোণার মোহনগঞ্জ উপজেলায় সদ্য বিবাহিতা এক হিন্দু নারীকে অস্ত্র ঠেকিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় আজ সোমবার দুপুরে ওই নারী মোহনগঞ্জ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আজ বিকেলে উপজেলার করাচাপুর গ্রাম থেকে হাইরুল (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, গত শনিবার দিবাগত রাতে ওই হিন্দু গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হন। সেদিন তার স্বামী ঘরে না থাকার সুযোগে গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রাশিদের ছেলে হাইরুল একটি ছুরি নিয়ে ওই নারীর ঘরে ঢোকেন। ছুরিটি ওই নারীর গলায় ঠেকিয়ে ধর্ষণ করেন।




ওই গৃহবধূর স্বামীর অভিযোগ, হাইরুল তার স্ত্রীকে প্রায়ই উক্ত্যক্ত করতেন। শনিবার রাতে তিনি বাড়ি ছিলেন না। এ সুযোগে তার স্ত্রীকে ধর্ষণ করেন তিনি।মামলা হওয়ার পর মোহনগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত আলী দ্রুত আদর্শনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) সুভাষীশকে নির্দেশ দেন হাইরুলকে গ্রেপ্তার করতে। পরে পুলিশ করাচাপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে মোহনগঞ্জ থানায় নিয়ে আসে।ওসি শওকত আলী জানান, মামলা হয়েছে এবং ভুক্তভোগীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।




বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়া অসম্ভব বলে মনে করছে জাতিসংঘের একটি ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন। রাখাইনে এখনও থাকা প্রায় ছয় লাখ রোহিঙ্গা ‘গণহত্যার মারাত্মক ঝুঁকিতে’ রয়েছে বলে জানান তারা।
মানবাধিকার পরিষদ গঠিত এই মিশন গতবছর ২০১৭ সালে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চালানো অভিযানকে ‘গণহত্যা’ বলে আখ্যায়িত করেছিল। সেই সময় তারা সেনাবাহিনীর প্রধান মিন অং লায়িংসহ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারও বিচার দাবি করেছিলেন।




জাতিসংঘের দলটি বলছে, মিয়ানমারের রাখাইনে এখনও ছয় লাখ রোহিঙ্গা রয়েছে৷ তারা ‘গণহত্যার মারাত্মক ঝুঁকির’ মধ্যে রয়েছে বলে জানিয়েছে। মিয়ানমার নিয়ে এই দলের তৈরি করা চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি মঙ্গলবার জেনেভায় উপস্থাপন করা হবে।

মার্কেট ঘেরাও করে গণগ্রেপ্তারঃ সৌদিতে আতঙ্কে বাংলাদেশিরা

সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মদিনায় মার্কেট ঘেরাও করে বাংলাদেশিদের গণগ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ। গত শুক্রবার সকালে মদিনা মসজিদুল হারামের ১৮ নম্বর গেটের সামনে অবস্থিত ‘তাইয়্যিবা কমার্শিয়াল সেন্টারে’ এই গণগ্রেপ্তারের অভিযান চালানো হয়।পুলিশের এই গ্রেপ্তারে পবিত্র হারাম শরীফে ফজরের নামাজ পড়তে যাওয়া প্রবাসীরাও বাদ পড়েননি। ওয়ার্ক পারমিট (আকামা) থাকা সত্ত্বেও ছাড় দেয়া হয়নি কাউকে। এমনকি কোনো কপিলের আবেদনও পাত্তা দেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।




তিনি জানান, আকস্মিকভাবে তাদের মার্কেট ঘিরে অন্তত ৭০ জনকে আটক করা হয়। সেখানে তার ছোট ভাই এরশাদুল হক, তকির ওসমানী, দোকানের কর্মচারী নুরুল আবছারও রয়েছে। যাদের সবারই ওয়ার্ক পারমিট আপ-টু-ডেট আছে। প্রবাসে আদৌ থাকা যাবে কি-না? তা নিয়ে উদ্বিগ্ন তিনি।গ্রেপ্তার হওয়া এসব বাংলাদেশিরা বর্তমান মদিনার কারাগারে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। গত চারদিন ধরে এক পোষাকেই কারাবন্দি অবস্থায় রয়েছেন তারা। এতে করে তাদের স্বজন ও প্রবাসী ব্যবসায়ীরা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে আছেন।




মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন জানান, গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে সবেমাত্র দেশের জায়গা জমি বিক্রি করে বিদেশে এসেছে এমন লোকও রয়েছেন। অনেকে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে পবিত্র হারাম শরীফে ফজরের নামাজ পড়তে গিয়ে আটক হয়ে এখন জেলে বন্দি। হজ করতে আসা স্বজনদের সঙ্গে শেষবারের মতো কেনাকাটা করতে গিয়ে রেহাই পায়নি পুলিশের হাত থেকে। সবার ঠিকানা এখন মদিনার কারাগার। যেকোনো সময় তাদের দেশে ফেরত পাঠাতে পারে সৌদি সরকার।




কমার্শিয়াল সেন্টারে ২০ বছরের অধিক সময় ধরে দোকান দিয়ে ব্যবসা করছেন নোয়াখালীর শাহ আলম। গণগ্রেপ্তার থেকে তিনি ও বাদ যাননি। কোনো অভিযোগ না থাকার পরও তিনি এখন কারাবন্দি। তাইয়্যিবা কমার্শিয়াল সেন্টারের আলসাফা আবায়া নামক দোকানের মালিক কক্সবাজারের মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন। তিনি জানান, আকামাসহ সমস্ত বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশি প্রবাসীদের ধরে নিয়ে যাচ্ছে সৌদি পুলিশ। পুরো মদিনা নগরী জুড়ে এখন চলছে গণগ্রেপ্তার আতঙ্ক। গণগ্রেপ্তারের ভয়ে প্রবাসীরা বাসা থেকে বের হতে পারছেন না।




প্রবাসীরা জানিয়েছে, গ্রেপ্তার সংবাদ শুনে তাদের কপিলরা(স্পন্সর) সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিজেদের জিম্মায় অন্তত পাঁচ দিনের জামিন চেয়েছে। কিন্তু সৌদি কর্তৃপক্ষ কোনো আবেদন শুনেনি। কারাগারে কারো সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয়নি তাদের।




গতকাল রোববার সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে রাত ১১টা ৭ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তারা। দেশে ফিরে যাওয়া এসব কর্মীদের পায়ে ছিল না কোনো জুতা। কেউ আবার কর্মক্ষেত্রের পোশাক পরা অবস্থায় বিমানে উঠে পড়েন।ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম থেকে বিমানবন্দরে এসব কর্মীদের খাবার সরবরাহ করেছে বলে জানা গেছে। একই সঙ্গে তাদের নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর সহায়তা দেয় ব্র্যাকের মাইগ্রেশন।




সৌদি প্রেস এজেন্সির তথ্যমতে, দেশটির কর্তৃপক্ষ তাদের চলমান অভিযানে কাজ ও থাকার নিয়ম লঙ্ঘনের দায়ে প্রায় ৩৮ লাখ বিদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে। ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে এ অভিযান চলছে।সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, জুনের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৫২১ জন। গ্রেপ্তার হওয়া বিদেশিদের মধ্যে ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত ৯ লাখ ৪০ হাজার ১০০ জনকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে বলেও সংবাদে উল্লেখ করা হয়।




ভাগ্য বদলের আশায় সৌদি আরবে যান চাঁদপুরের বাবুল হোসেন। তার অভিযোগ, সৌদিতে ছয় মাসের বৈধ আকামা (কাজের অনুমতিপত্র) থাকার পরও কর্মস্থল থেকে ধরে তাকে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার কোনো কথাই শুনেনি দেশটির প্রশাসন।টাঙ্গাইলের আলিম ও মনির হোসেন, নরসিংদীর মো. জোবাইর, লক্ষ্মীপুরের ফরিদ, মুন্সিগঞ্জের শরিফ হোসেন এবং মেহেরপুরের সেলিম রেজাসহ অনেকের অভিযোগ, বৈধ আকামা থাকা সত্ত্বেও তাদের জোর করে ধরে জেলখানাতে নিয়ে যাওয়া হয়।
অনেক ক্ষেত্রে মালিকপক্ষ আকামা নবায়ন করেনি বা তা বাতিল করে শ্রমিকদের দেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে বলে জানান তারা। এসব কাজে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাস তাদের কোনো সহযোগিতা করেনি।তারা জানান, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এখনই ব্যবস্থা নেওয়া না হলে সমস্যাটি বড় আকার ধারণ করবে।

এবার হাসপাতালের ১৭ কোটি টাকা মেরে দিয়েছেন ঠিকাদার-সিভিল সার্জন

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের যন্ত্রপাতি কেনার নামে ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা লোপাটের ঘটনায় দুদকের মামলায় ঠিকাদার ও সহযোগীদের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিকাল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহের উদ্দিন সরকারসহ খুলনা কারাগারে বন্দি চারজনের জামিন নামঞ্জুর করা হয়।




এ মামলায় ঠিকাদার জাহের উদ্দিন সরকার, তার বাবা আব্দুর সাত্তার সরকার, ভগ্নিপতি আসাদুর রহমান ও নিয়োগকৃত প্রতিনিধি কাজী আবু বকর সিদ্দিক খুলনার কারাগারে রয়েছেন। সোমবার জামিন শুনানির দিনে দ্বিতীয়বারের মতো তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন খুলনা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল আদালত।সোমবার জামিন শুনানি শেষে আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করেন খুলনা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল আদালতের বিচারক শহীদুল ইসলাম। এর আগে ৯ সেপ্টেম্বর একই আদালতে তাদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।




দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) খুলনার পিপি অ্যাডভোকেট খন্দকার মজিবর রহমান বলেন, খুলনার কারাগারে বন্দি থাকা ঠিকাদার জাহের উদ্দিন সরকারসহ চারজনের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। একই সঙ্গে মামলার নথিপত্র সাতক্ষীরা জেলা জজ আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।একই দিনে ওই মামলার প্রধান আসামি সাতক্ষীরার সাবেক সিভিল সার্জন ডা. তৌহিদুর রহমানের জামিন আবেদন বাতিল করে তাকেও কারাগারে পাঠান সাতক্ষীরার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। বর্তমানে তিনি সাতক্ষীরার কারাগারে রয়েছেন।




তিনি বলেন, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে চিকিৎসা যন্ত্রপাতি না কিনে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১৬ কোটি ৬১ লাখ ৩১ হাজার ৮২৭ টাকা লোপাট করেছেন। এ ঘটনায় ৯ জুলাই দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় মামলা করে দুদক। মামলায় সাতক্ষীরার সাবেক সিভিল সার্জন ডা. তওহীদুর রহমান, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স বেঙ্গল সায়েন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিকাল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহের উদ্দিন সরকারসহ ৯ জনকে আসামি করা হয়েছে।




দুদকের সাতক্ষীরার পিপি মোস্তফা আসাদুজ্জামান দিলু বলেন, আগামীকাল মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলার দিন ধার্য রয়েছে। কারাগারে থাকা সাতক্ষীরার সাবেক সিভিল সার্জন তৌহিদুর রহমানের আইনজীবীরা মামলার সার্টিফায়েড কপি সংগ্রহ করেছেন। তার জামিন আবেদন করা হলে আমরা তার বিরোধিতা করব।




ভালো রেজাল্টে সচিব, খারাপ রেজাল্ট হলে মন্ত্রী
ভালো রেজাল্ট হলে ভালো ডাক্তার হবেন, খারাপ রেজাল্ট হলে হাসপাতালের মালিক হবেন। ভালো রেজাল্ট হলে ইঞ্জিনিয়ার হবেন, খারাপ রেজাল্ট হলে নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের মালিক হবেন। ভালো রেজাল্ট হলে অধ্যাপক হয়ে রবীন্দ্রনাথের কবিতায় তরী শব্দের ব্যবহার নিয়ে থিসিস লিখবেন, খারাপ রেজাল্ট হলে রবীন্দ্রনাথ হবেন। ভালো রেজাল্ট হলে সচিব হবেন, খারাপ রেজাল্ট হলে মন্ত্রী হবেন। ভালো রেজাল্টেও মন্ত্রী হয়। কিন্তু…




আবার মেডিকালের ফার্স্ট বয়/গার্ল সবচেয়ে ভালো ডাক্তার হয় না। আর্ট কলেজের ফার্স্ট বয়/গার্ল সবচেয়ে ভালো আর্টিস্ট হয় না। বাংলা সাহিত্যের ফার্স্ট বয়/গার্ল বড় কবি হয় না। আবার ভালো ছাত্রও লেখক হতে পারেন, যেমন হুমায়ূন আহমেদ, বোর্ডের সেকেন্ড স্ট্যান্ড করা। কিন্তু তিনি বিজ্ঞান পড়েছেন, সাহিত্য নয়।পরীক্ষার ফলের সঙ্গে বাস্তবজীবনের সম্পর্ক কম। বাংলাদেশের সেরা ১০ ধনীর কেউই ভালো ছাত্র ছিলেন না।বিবিসির জরিপে হাজার বছরের সেরা বাঙালিদের ২০ জনের দুই/তিনজন মাত্র ভালো ছাত্র ছিলেন, শেরে বাংলা, আর কিছুটা অমর্ত্য সেন। বাকিরা কেউই ভালো ছাত্র ছিলেন না।

সরকার আসামের ১৯ লাখ মানুষ নিয়ে মন্তব্যে প্রতিবাদ করে না : ফখরুল

বর্তমান সরকারকে ‘নতজানু সরকার’ আখ্যা দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জ ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আসামে প্রায় ১৯ লাখ মানুষকে রাষ্ট্রহীন করা হয়, তাদের বলা হয় তারা সবাই বাংলাদেশ থেকে এসেছে তাদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়া হবে- তখন এই নতজানু সরকারকে কোনো প্রতিবাদ করতে আমরা দেখি না।সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর তোপখানা রোডে শিশুকল্যাণ পরিষদ মিলনায়তনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে ‘বিশ্ব গণতন্ত্র দিবস ও আমরা’ শীর্ষক এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।




তিনি আরো বলেন, ‘আমি আহ্বান জানাতে চাই, আমাদের মধ্যে যে ছোটখাটো পার্থক্য আছে মতের মধ্যে সেগুলোকে পাশে রেখে আমাদের জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য, গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনার জন্য আমরা একসাথে কাজ করি। একসাথে আমরা স্লোগান দেই- আমাদের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে-সেটাই হবে আজকের দিনে বড় একটি কথা।’




ফখরুল বলেন, যারা বিশ্ব রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করে আজ তাদের একটা ক্রীড়ানক হয়ে এই সরকার ক্ষমতায় আছে। যে কারণে আমরা দেখি যখন রোহিঙ্গা সমস্যা সৃষ্টি হয়, সেই সমস্যার সমাধান বাংলাদেশ তার কূটনৈতিক ম্যানুভারিং করে করতে পারে না। আসাম নিয়েও কোনো প্রতিবাদ করে না।ঐক্যফ্রন্ট সক্রিয় আছে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘এখানে বলেছেন, ঐক্যফ্রন্টকে সক্রিয় দেখতে পারছেন না। সক্রিয় কোন দিক দিয়ে না।




তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে যে গণতন্ত্রহীনতা- এটা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। সামগ্রিকভাবে গোটা বিশ্বে পলিটিক্যাল চেঞ্জ যেগুলো ঘটছে তার মধ্যে বাংলাদেশ পড়ে গেছে। আজকের সরকার ওই আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগসাজশ করে বাংলাদেশের জনগণের অধিকারকে হরণ করে দিচ্ছে। প্রকৃত পক্ষে তারা সম্পূর্ণভাবে পাপেট সরকারে পরিণত হয়েছে।




বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশে এ সরকার সম্পূর্ণভাবে জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া একটি সরকার এবং আওয়ামী লীগ ইতিপূর্বে একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করেছিল, তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না, কোনো দিন করেওনি। ওরা একটি ফ্যাসিস্ট শক্তি। আমরা নির্বাচনের পূর্বে ঐক্যফ্রন্ট তৈরি করেছিলাম, জোট করেছিলাম, সেই ঐক্য এখনো অটুট আছে। সেখানে কোনো ভাঙন ধরেনি।




নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য শহীদুল্লাহ কায়সারের পরিচালনায় আলোচনা সভায় জেএসডি সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের জোনায়েদ সাকি, গণফোরামের জগলুল হায়দার আফ্রিক, নাগরিক ঐক্যের এস এম আকরাম, মোমিনুল ইসলাম ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল বক্তব্য রাখেন।

তুরস্ক সর্বাধুনিক আবিষ্কার প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে!

বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এরদোগান বলেন, সপ্তাহ দুয়েক আগে ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনালাপে তিনি প্যাট্রিয়ট কেনার কথা আলাপ করেছেন। আসছে সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যখন তাদের বৈঠক হবে, তখন এ নিয়ে কথা বলবেন বলে জানান তিনি। শুক্রবার তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, এস-৪০০ এর মতো যেকোনো প্যাকেজই আমরা পাই না কেন, সেটি কোনো ব্যাপার নয়।




রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কিনে বিশ্ব রাজনীতিতে কম বিতর্ক হয়নি তুরস্ক। আমেরিকা ও ন্যাটো ঘোর বিরোধীতা করেছে, কিন্তু তুরস্ক পিছপা হয়নি। তবে এবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান বলেছেন, মার্কিন প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র কিনতে চলতি মাসে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনা করবেন। রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা ক্রয়ের পর যে সংকট তৈরি হয়েছে, মার্কিন নেতার সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্ক দিয়ে তিনি তা উতরে যেতে পারবেন বলে মনে করেন।




কারণ এটি কোনো যৌক্তিক আচরণ হতে পারে না। ফোরাত নদীর তীর থেকে ইরাক সীমান্ত পর্যন্ত বিস্তৃত সাড়ে চারশ কিলোমিটারের সিরীয় সীমান্তে একটি নিরাপদ এলাকা প্রতিষ্ঠা করতে ট্রাম্প ও এরদোগানের মধ্যে আলোচনা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। এরদোগান বলেন, শান্তির জন্য একটি করিডোর অপরিহার্য। আমাদের সীমান্তে সন্ত্রাসীদের করিডোর আমরা সহ্য করব না। এ ক্ষেত্রে যে ধরনের পদক্ষেপ নেয়া দরকার, আমরা সেটিই করে যাব।




আমরা আপনাদের কাছ থেকে একটি নির্দিষ্টসংখ্যক প্যাট্রিয়ট কিনতে পারি। তিনি বলেন, ট্রাম্প বলেছেন- আপনি কি আন্তরিক? আমি বলেছি- হ্যাঁ, অবশ্যই। কাজেই সাক্ষাতে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন এরদোগান। দুই নেতার মধ্যে ভিন্ন ধরনের আস্থা রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমার মত হচ্ছে- আমেরিকার মতো একটি দেশ তার মিত্র তুরস্ককে আর আঘাত করতে চাইবে না।




ইসলাম প্রকৃতির ধর্ম। এর প্রতিটি বিধান প্রকৃতিসম্মত ও মানুষের স্বভাববান্ধব। প্রথমে ঈমান নিয়ে বললে বলতে হয়, মানুষ মাত্রই বিশ্বাসের শক্তি চায়। নির্ভর করতে চায়। আস্থা রাখতে চায়। নিজের দুঃখ, কষ্ট দুর্বলতা, অসহায়ত্ব থেকে রক্ষার জন্য মানসিক বল আশা করে। নিজের সব অক্ষমতা উতরে যাওয়ার জন্য উপযুক্ত একটি ভরসা চায়। নিজের মনের আকুতি, নৈবেদ্য, ভক্তি অর্পণের জন্য একটি পরম শক্তি চায়। এসব মানুষের স্বভাব। মানুষের সৃষ্টি ও গঠনও এমন চাহিদাকে সাপোর্ট করে। যে চাহিদা বা নিবেদন আল্লাহ পূরণ করেছেন।




কিন্তু কেবল হিন্দু সম্প্রদায়েই নয়, ভারতীয় মুসলমানদের মধ্যেও যে ‘অস্পৃশ্য’ বা ‘দলিত’ মুসলিম আছে— সেই তথ্যই উঠে এসেছে দেশটিতে পরিচালিত সাম্প্রতিক এক গবেষণায়। ভারতে বর্তমানে প্রায় ১৪ কোটি মুসলিম নাগরিক আছে। এদের একটা বিরাট অংশই হিন্দু থেকে ধর্মান্তরিত। মনে করা হয়, হিন্দু জাত-পাত প্রথার নিগ্রহ থেকে রক্ষা পেতেই নিম্নবর্ণের হিন্দুদের এই ধর্ম বদল। সাধারণত, ইসলাম সকল মানুষের সমতার কথা বলে। আর মুসলিমদের ধর্মগ্রন্থেও বর্ণভেদ প্রথার কোনো উল্লেখ নেই। তাই, সামাজিক-চর্চায় অস্পৃশ্যতার বিষয়টি বিরাজমান থাকলেও এর বিরুদ্ধে মুসলিম সমাজ তেমন উচ্চ-বাচ্য নেই।




তাদের জন্য রয়েছে আলাদা কবরস্থান। আর যদি কোনো দলিত কাউকে উচ্চবর্ণের কবরস্থানে গোর দেয়া হয় তবে সেই লাশের জায়গা হয় একেবারে কোনো একটা কোণায়। বেশিরভাগ মুসলিম একই মসজিদে নামাজ আদায় করলেও দলিত মুসলিমদের অনেকেই বলছেন যে তারা প্রায় সময়ই বোধ করেন তাদের প্রতি অন্যদের এক ধরণের উপেক্ষা বা বৈষম্য।

সাধারণত নিচু জাতের সব কাজ করাই দলিত মুসলিমদের কাজ বলেও মনে করা হয়। গবেষণায় অংশ নেয়া অন্তত ১৩ ভাগ দলিত মুসলিম জানিয়েছে যে, উচ্চ বর্ণের কোনো মুসলমানের বাড়িতে যদি তাদেরকে খাবার বা পানি দেয়া হয় তাহলে তা পরিবেশন করা হয় ভিন্ন পাত্রে। এছাড়া মুসলিম দলিতদেরকে ভিন্ন পাত্রে খাবার ও পানি পরিবেশন করার প্রবণতা হিন্দুদের মধ্যে আরো প্রকট।

এবার সভাপতি পদে নির্বাচন করবেন মৌসুমী!

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আগামী নির্বাচনের সভাপতি পদে নির্বাচন করবেন জনপ্রিয় নায়িকা মৌসুমী। এখনো সমিতির নতুন মেয়াদের নির্বাচনের তফষিল ঘোষণা হয়নি, এর আগেই নির্বাচনে প্রার্থী হবার বিষয়টি ঘোষণা দিলেন তিনি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ইতিহাসে এবারই প্রথম একজন নারী সভাপতি প্রার্থী হচ্ছেন। এ বিষয়ে মৌসুমী বলেন, সবার অনুরোধেই প্রার্থী হতে যাচ্ছি। আমারও আগ্রহ ছিল।




এদিকে পুরো প্যানেলের বিষয়ে এখনই কিছু বলতে চাননি মৌসুমী। তিনি বলেন, জ্যেষ্ঠ শিল্পীরাসহ বর্তমান সব তারকা শিল্পীকে নিয়ে বসে আলোচনার ভিত্তিতে সাধারণ সম্পাদকসহ একটা ভালো প্যানেল দিতে চাই আমরা। তফসিল ঘোষণা হলেই তা জানা যাবে।প্রসঙ্গত, চলতি কমিটির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন মৌসুমী। নির্বাচিত হওয়ার তিন মাসের মাথায় ২০১৭ সালের ৩ জুলাই তিনি পদত্যাগ করেন।




এই জায়গাটাতে এসে চলচ্চিত্র, চলচ্চিত্রশিল্পীদের জন্য নতুন কিছু করতে চাই। তিনি আরো বলেন, আজ রাজ্জাক আঙ্কেল নেই। গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি তাকে। এ ছাড়া ফারুক ভাই, সোহেল রানা ভাই, আলমগীর ভাই, উজ্জ্বল ভাই, কাঞ্চন ভাই, রুবেল ভাই, কবরী আপা, সুচন্দা আপা, ববিতা আপা, রোজিনা আপা, চম্পা আপাসহ জ্যেষ্ঠ গুণী শিল্পীদের কাছে যাব। তাদের দোয়া নিয়েই মাঠে নামব।




কিন্তু হঠাৎ করে তার আপকামিং নতুন সিনেমা নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করে বিতর্কের জন্ম দিলেন জাইরা। তিনি সর্বশেষ ‘স্কাই ইজ পিঙ্ক’ ছবিতে অভিনয় করেছেন। ছবিতে রয়েছে প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও। এই ছবিটি আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর টরোন্টো চলচ্চিত্র উৎসবে মুক্তি পাবে। সম্প্রতি এই সিনেমা নিয়ে একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন প্রিয়াঙ্কা। সেই ছবিতে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে দেখা যাচ্ছে জাইরাকেও। সঙ্গে রয়েছেন ফারহান আখতার ও রোহিক সরাফ।




পাঁচ বছরের বলিউড ক্যারিয়ারের পাঠ চুকিয়ে সম্প্রতি অভিনয় ছেড়ে দিয়েছেন ‘দঙ্গল’ খ্যাত অভিনেত্রী জাইরা ওয়াসিম। বলিউডে এসে ঈমান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এমন যুক্তি দিয়ে অভিনয় ছাড়ার ঘোষণা দেন ১৮ বছর বছরের মুসলিম এই অভিনেত্রী।এরপর সালমান খানের উপস্থাপনায় জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘বিগ বস’- এ অংশ নিতে প্রায় ১.২ কোটি রুপির প্রস্তাব দেয়া হয় তাকে। সেটিও ফিরিয়ে দেন তিনি।




ছবির ক্যাপশনে প্রিয়াঙ্কা লেখেন, ‘সবার সঙ্গে ছবি দেখার জন্য আর অপেক্ষা করে থাকতে পারছি না।’ এই ছবি প্রকাশ্যে আসতেই নতুন করে বিতর্ক দানা বাঁধে। নেটিজেনরা মন্তব্য করছেন, ধর্মের জন্য বলিউড ছাড়ার পরেও জাইরা ওয়াসিম কেন বলিউডের মানুষদের সঙ্গে ছবি তুললেন! প্রচারের আলোয় থাকার জন্যই কি তখন বলিউড ছাড়ার পোস্ট করেছিলেন জাইরা এমন প্রশ্নও করছেন অনেকে।




কেউ আবার লিখেছেন, এই ছবিটি হয়তো জাইরার সেই সিদ্ধান্ত প্রকাশের আগের তোলা। ছবিটি আসলে কবে তোলা এবং প্রিমিয়ারে আদৌ জাইরা উপস্থিত থাকবেন কি না সেটা এখনই জানা যাচ্ছে না। তবে এটা সিনেমার প্রচারে একটি স্ট্যান্টবাজি হলে অবাক হওয়ারও কিছু থাকবে না।

বাংলাদেশ দলে রদবদলঃ ফিরেছেন রুবেল,শফিউল!

সোমবার সকালে বিসিবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ১৫ জনের দল ঘোষণা করে। এর মধ্যে বড় চমক সৌম্যর বাদ পড়া। বিশ্বকাপ থেকে রানের মধ্যে নেই বামহাতি এ ওপেনার। টেস্ট ও ওয়ানডেতে অনিয়মিত হলেও টি-টোয়েন্টি দলে মোটামুটি নিয়মিতই ছিলেন সৌম্য। এবার কুড়ি ওভারের ক্রিকেট থেকেও বাদ পড়লেন।বাদ পড়লেন সৌম্য সরকার। ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। তাতে বাদ পড়েছেন সৌম্য সরকার। এছাড়া অজানা কারণে বাদ পড়েছেন মেহেদী হাসান, ইয়াসিন মিশু ও আবু হায়দার রনি। সবমিলিয়ে বড় ধরনের রদবদলই এসেছে বাংলাদেশ দলে।




আগের ১৪ সদস্যের দল থেকে চার ক্রিকেটারের বদলে শেষ দুটি ম্যাচে নতুন করে সুযোগ পেয়েছেন ৫ জন। তাতে দলটি দাঁড়িয়েছে ১৫ জনের। দলে ফিরেছেন শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন, নাঈম শেখ, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও নাজমুল হোসেন শান্ত।চট্টগ্রামের উদ্দেশে সোমবার রওনা দেবে বাংলাদেশ। বুধবার চট্টগ্রামে বাংলাদেশ তাদের তৃতীয় ম্যাচটি খেলবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।




বাদ পড়লেন সৌম্য, ফিরলেন পাঁচজন,নতুন মুখ দুইজন
প্রায় এক বছর পর বাংলাদেশ দলের দরজা খুলেছে বাঁহাতি ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তর।২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে শেষবার জাতীয় দলের পোশাকে খেলেছিলেন শান্ত। দলে ফিরেছেন পেসার রুবেল হোসেন এবং শফিউল ইসলাম। সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে ব্যাট হাতে একেবারেই ব্যর্থ ছিলেন সৌম্য। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৪ রান এবং আফগানিস্তানের বিপক্ষে ০ রান করেছেন তিনি।




ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজে তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচের জন্য ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দল থেকে বাদ পড়েছেন বাঁহাতি ওপেনার সৌম্য সরকার, পেসার আবু হায়দার রনি, তরুণ স্পিনার মেহেদী হাসান ও পেসার ইয়াসিন আরাফাত মিশু। অভিজ্ঞদের মধ্যে দলে ফিরলেন পেসার শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন ও নাজমুল হাসান শান্ত।অন্যদিকে জাতীয় দলে প্রথমবারের মতো ডাক পেয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার নাঈম শেখ এবং লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।




বাংলাদেশের স্কোয়াড : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাব্বির রহমান, তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, নাঈম শেখ, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, নাজমুল হোসেন শান্ত।
নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সেরা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। কিন্তু মুশফিকুর রহিমের একটি ভুলের কারণে ম্যাচ হাতছাড়া হচ্ছে বাংলাদেশের। যেমন গতকাল আফগানিস্তানের বিপক্ষে তার একটি ভুলের কারণে অতিরিক্ত অনেকগুলি রান যোগ হয়েছে স্কোরবোর্ডে। রোববার রাতে মিরপুরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচেও উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে দাঁড়িয়েছিলেন মুশফিক।




বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেই ম্যাচে যদি কেন উইলিয়ামসনের সেই রান আউটটা মিস না করতেন মুশফিকুর রহীম, তাহলে ইংল্যান্ডে বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসটা হয়তো ভিন্নভাবে লিখতে হতো। কিন্তু তামিমের থ্রোতে মুশফিকুর রহীম যেভাবে বাচ্চাসূলভ ভুলটা করেছিলেন, তাতেই বাংলাদেশের ভবিতব্য লেখা হয়ে গিয়েছিল। যেখান থেকে আর ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পায়নি টাইগাররা। বরং, ধীরে ধীরে তলানীতেই নেমেছে।




অথচ, দলে তার চেয়েও ভালো উইকেটরক্ষক (লিটন দাস) ছিলেন। তবুও গ্লাভসটা পরলেন মুশফিকই। শেষ পর্যন্ত মুশফিকের ভুলে অনেকগুলো রান যোগ হলো আফগানদের ইনিংসে। মোট ১৮ রান। এর মধ্যে দুটি বাউন্ডারি হলো উইকেটরক্ষক মুশফিকের ভুলে। একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ, ২০ ওভারের খেলা। সেখানে যদি উইকেটরক্ষকের ভুলে দুটি বাউন্ডারি হয়ে যায়, তাহলে সেটা সত্যিই ক্ষমার অযোগ্য।

ড্রাইভারকে এবার গাড়ী উপহার দিলেন আনুশকা শেঠি।

তারকারা সাধারন্ত অনেক টাকা পয়সার মালিক হন। টাকা খরচের জন্যও অনেক সময় শিরোনামে থাকতে হয় তাদের। সম্প্রতি এমনই একটি কাজ করেছেন ‘বাহুবালি’ অভিনত্রেী আনুশকা শেঠি। তিনি তার গাড়ি চালকের জন্মদিনে এমন একটি উপহার দিয়েছেন যেটা তার ভক্তদের রীতিমতো তাঁক লাগিয়ে দিয়েছে! আনুশকা তার গাড়ি চালককে একটি নতুন গাড়ি উপহার দিয়েছেন! যার বাজার মূল্য ১২ লক্ষ রুপি।




অভিনেত্রী নিজেও বিলাসবহুল গাড়ি ব্যবহার করেন। নামীদামি সব গাড়ির কালেকশন রয়েছে অভিনেত্রীর গ্যারেজে। শুধু গাড়িই নয়, আনুশকার বাংলোটিও অনেক ধনাঢ্য ব্যবসায়ীদের চেয়ে যথেষ্ট সুন্দর। কোটি কোটি রুটি খরচ করে বানানো হয়েছে ওই বাংলো। অবশ্য এতো সম্পদের মালিক হলেও অভিনেত্রীর নেই কোনো অহংকার। অত্যন্ত ভদ্র এবং একজন সাদাসিদে মানুষ হিসেবেই তিনি পরিচিত বন্ধু এবং আত্মীয়-স্বজনদের কাছে।




মাঝে মধ্যেই সংবাদের শিরোনামে উঠে আসছেন ‘বাহুবালি’র দেবসেনা। কখনও বিয়ে তো কখনও ক্যারিয়ারের নানা বিষয় নিয়ে সংবাদের পাতায় স্থান হচ্ছে তার। সম্প্রতি এই অভিনেত্রীকে নিয়ে একটি খবর প্রকাশ পেয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম জুড়ে। সেই খবরের কারণে আনুশকার ভক্তরা অভিনেত্রীকে নিয়ে রীতিমতো গর্ব করেছেন। অবশ্য গর্ব করার মতোই একটি কাজ করেছেন তিনি।




জেরার মুখে সিমলা, তথ্য গোপন করছেন তদন্ত কর্মকর্তা
বাংলাদেশ বিমানের দুবাইগামী ময়ূরপঙ্খি ফ্লাইট ‘ছিনতাই চেষ্টার’ ঘটনায় নিহত পলাশ আহমেদের স্ত্রী চিত্রনায়িকা শামসুন নাহার সিমলাকে টানা কয়েক ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট।
গত বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত একটানা চলে এ জিজ্ঞাসাবাদ। জিজ্ঞাসাবাদে অনেক অজানা প্রশ্নের উত্তর মিলেছে বলে জানা গিয়েছে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়ার কাছ থেকে।




বিমানের ইমার্জেন্সি ডোর দিয়ে যাত্রী ও কেবিন ক্রুদের দ্রæত বের করে আনা হয়। পরে যৌথ বাহিনীর প্যারা কমান্ডো টিমের অভিযানে মারা যান পলাশ আহমেদ। ঘটনার পর মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে নায়িকা সিমলা বলেছিলেন, ‘দেশের স্বার্থের জন্য আমাকে যদি কোনো প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় তাহলে আমি তৈরি আছি, নো প্রবলেম।




রাজেশ বড়ুয়া জানিয়েছেন, ‘২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পরিচালক রশিদ পলাশের জন্মদিনে সিমলার সঙ্গে পরিচয় হয় পলাশের। সেই সূত্রে পরিচয়ের ছয় মাস পর ২০১৮ সালের ৩ মার্চ বিয়ে করেন সিমলা ও পলাশ। বিয়ের পর মাত্র ৯ মাস টিকে ছিল তাদের সংসার। ৯ মাসের মাথায় তালাকের সিদ্ধান্ত নেন তারা। ওই বছরের (২০১৮) নভেম্বরে তাদের ডিভোর্স হয়।




রাজেশ বড়ুয়া আরও জানান, ‘জিজ্ঞাসাবাদে অনেক তথ্যই হাতে এসেছে। এমন আরো অনেক বিষয় আমরা জেনেছি, যা এখনই গণমাধ্যমকে জানানো যাচ্ছে না। তদন্তের স্বার্থে আমাদের তা গোপন রাখতেই হচ্ছে।উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৫টা ১৩ মিনিটে ছেড়ে আসা বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইনসের বিমান বিজি-১৪৭ উড্ডয়নের ১৫ মিনিট পর পলাশ আহমেদ নামে এক যুবক বিমানটি ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন। ৫টা ৪১ মিনিটে বিমানটি শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।