সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে খালেদা জিয়া এবং কুদ্দুসুর রহমানের মিথ্যা মা’মলা ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন,




স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিনা রহমান, কুদ্দুসুর রহমান মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সাইফুল আলম নীরবসহ দলের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, আমরা এমনই এক স্বাধীনতা পেয়েছি যেখানে কেউ স্বাধীনভাবে কথা বলতে পারে না।




কথা বললে গ্রে’ফতার করা হয়। বিএনপির ৩৫ লাখ নেতা কর্মীকে গ্রে’ফতার করা হয়েছে। আমি গর্বিত যে ৩৫ লাখ নেতা কর্মী আছে বিএনপির গ্রে’ফতার হওয়ার মত। এতেই আওয়ামী লীগের সতর্ক হওয়া উচিত।




মির্জা আব্বাস বলেন, আওয়ামী লীগের পেটোয়া পু’লিশ বাহিনী ছাড়া এক মিনিটও টিকে থাকার শক্তি নাই। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ আর এখন নেই। বিএনপির যতগুলো কর্মী গ্রে’ফতার হয়েছে, এতগুলো কর্মীও আওয়ামী লীগের নেই।




শুধুমাত্র পু’লিশ পেটোয়া বাহিনীর জন্য এই অ’বৈধ সরকার টিকে আছে। এই পেটোয়া বাহিনী ছাড়া এক মিনিটও টিকে থাকার শক্তি বা ক্ষমতা এই আওয়ামী লীগ সরকারের নাই।




আমাদের নেত্রীর যদি জে’ল খানায় মৃ’ত্যু হয় তাহলে জনগণ পাই পাই করে এর প্রতিশোধ আদায় করে নিবে। খালেদা জিয়া এক পয়সাও আত্মসা’ৎ করেনি। আওয়ামী লীগের নেতাদের ঘরের মধ্যে ঝাড়ু দিলেই ৪-৫ শ’ কোটি টাকা পাওয়া যায়।




খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া একজন বৃদ্ধ অ’সুস্থ মানুষ। তাকে জে’লখানায় বন্দি করে রাখা হয়েছে। দেয়া হচ্ছেনা ঔষধ, ভালো কোন খাবার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here