জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের ১৫ দিন পার হওয়ার পর ক্লাস-পরীক্ষা চালু ও হল খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বুধবার দুপুরে উপাচার্যের কার্যালয়ে গিয়ে হল খুলে দেয়ার দাবিসহ ৭টি প্রস্তাব দিয়ে উপাচার্যের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তারা।জমা দেয়ার সময় আবেদনপত্রে স্বাক্ষরকারী ১৩ জন শিক্ষার্থীসহ উপাচার্যপন্থী শিক্ষকরা উপস্থিত ছিলেন।

তাদের দাবিগুলো হল: অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল, ক্লাস, লাইব্রেরি খুলে দিয়ে প্রশাসনিক কার্যক্রম চালু করা, দীর্ঘদিনের অচলাবস্থার ক্ষতি পুষিতে নিতে শীতকালীন ছুটি কমানো, দ্রুত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ, শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে অজ্ঞাতনামা মামলা তুলে নেয়া ও শিক্ষকদের ওপর হামলার সুষ্ঠু তদন্তসাপেক্ষে অপরাধীদের বিচার করা, আন্দোলনে দেশবিরোধী চক্রান্তকারীদের শনাক্তের ব্যাপারে সরাসরি সরকারের হস্তক্ষেপ করা, দুর্নীতির তদন্তের রিপোর্ট আসার আগ পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের আন্দোলন স্থগিত রাখা এবং তদন্তের স্বচ্ছতা ও সুষ্ঠু পরিস্থিতির স্বার্থে উভয় পক্ষকে কাদা ছোড়াছুড়ি থেকে বিরত থাকা।

এ বিষয়ে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের আরিফ ফয়সাল বলেন, আমাদের অনেকের টিউশনি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ না হওয়ায় চাকরির পরীক্ষায় আবেদন ও অংশ নিতে পরছি না। এ জন্য আমরা উপাচার্যের কাছে আবেদন করেছি, যাতে দ্রুত হল খুলে দেয়া হয়। এ ছাড়া কোনো সাধারণ শিক্ষার্থী যেন কোনোরকম অহেতুক হয়রানির শিকার না হয় সে জন্যও উপাচার্যের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি।

জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে শাখা ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা। ৫ নভেম্বর দুপুরে এ হামলার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটের জরুরি এক সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ক্লাস-পরীক্ষা ও হলসমূহ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে।

কিন্তু বন্ধ ক্যাম্পাসেও আন্দোলন চালিয়ে যান শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। হল খুলে দেয়ার দাবিতে তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দেয়। এই আল্টিমেটাম শেষ হবে বৃহস্পতিবার।এ বিষয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী মুশফিকুস সালেহীন বলেন, আমরা যে আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম সেটা বৃহস্পতিবার শেষ হবে। যদি প্রশাসনের কাছ থেকে কোনো ইতিবাচক সাড়া না পাই তবে আমরা নতুন করে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here