ষোল বছরের দৃষ্টিহীন এক ছা’ত্রী ধ’র্ষণের শিকার হয়েছে টানা চার মাস ধরে।এই কা’ণ্ডে অ’ভিযুক্ত হয়েছেন তারই দুই শিক্ষক। ওই দুই শিক্ষকও দৃষ্টিহীন। এদের মধ্যে একজনের বয়স ৬২।ভারতের রাজকোটের মন্দির শহর আম্বাজিতে এ ঘটনা ঘটেছে।ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, গত মাসে দীপাবলির ছুটিতে পাটান জে’লার রাধানপুর তালুকায় নিজের গ্রাম প্রে’মনগরে গিয়ে বোনের কাছে সব খুলে বলেন ওই কি’শোরী।ছুটি শেষ হয়ে যাওয়ার পরও স্কুলে যেতে চাইছিল না সে। এতে স’ন্দেহ হয় পরিবারের।




এক পর্যায়ে ওই ছা’ত্রী তার স্কুলের দুই শিক্ষক চ’মন ঠাকুর (৬২) ও জয়ন্তী ঠাকুরের (৩০) কুকী’র্তির কথা জানায়।এরপরই পরিবারের অ’ভিযোগের ভিত্তিতে মা’মলা দায়ের করা হয় অ’ভিযুক্ত শিক্ষকদের বি’রুদ্ধে।স্থানীয় একটি স্কুলে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করে গান শেখার জন্য গত জুলাইয়ে স্কুলটিতে ভর্তি হয় ওই কি’শোরী।স্কুলে বিশেষভাবে সক্ষম’দের ভোকেশনাল ট্রেনিং ও কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করা হয়। স্কুলের হোস্টেলে থাকতো মেয়েটি।




গত ৪ নভেম্বর পু’লিশের কাছে দায়ের করা অ’ভিযোগে বলা হয়েছে, ২ মাস আগে মিউজিক রুমে প্রথম মেয়েটিকে ধ’র্ষণ করেন জয়ন্তী ঠাকুর।তিনদিন পর ওই একই ঘরে তাকে ফের ধ’র্ষণ করে চ’মন। এরপর নবরাত্রির আগে ফের জয়ন্তী মেয়েটিকে ধ’র্ষণ করে।এভাবে দিনের পর দিন চলতে থাকে যৌ’ন নি’র্যাতন।সহ্য করতে না-পেরে স্কুলের অন্য তিনজন শিক্ষককে বিষয়টি জানিয়েছিল মেয়েটি।আম্বাজির পু’লিশ পরিদর্শক জেবি আগরওয়াত বলেন, এ ঘটনায় আম’রা ত’দন্ত শুরু করেছি। অ’ভিযুক্ত শিক্ষকেরা পালিয়েছেন। তাদের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লা’শি।এদিকে ছা’ত্রীকে ধ’র্ষণের অ’ভিযোগ ওঠার পর ওই দুই শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে স্কুল পরিচালনা কমিটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here